আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রামে

অন্তিমযাত্রায় বন্দরনগরী চট্টগ্রামে এসে পৌঁছেছেন রূপালি গিটারের জাদুকর বরণ্যপুত্র আইয়ুব বাচ্চু। শনিবার সকাল ১০টা ৫৭ মিনিটে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইট করে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে তার মৃতদেহ এসে পৌঁছায়।

এখান থেকেই সরাসরি নেয়া হবে নগরের দক্ষিণ পূর্ব মাদারবাড়ি এলাকার সেই নানা বাড়ি আঙিনায়। যে বাড়িতে কেটেছে শিশুকাল থেকে শৈশবের অর্ধেক সময়।

এই বাড়িতেই স্বজনদের এক নজর দেখার জন্যে দুপুর ২টা পর্যন্ত রাখা হবে।

এরপর বিকেল ৩টায় নেয়া হবে নগরের দামপাড়ায় জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদে।

সেখানে শ্রদ্ধা জানাবেন তার ভক্তকূল ও সর্বস্তরের জনতা।

সেখানেই গিটারের জাদুকর, কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী এবি’র জানাজা হবে আসরের নামাজ শেষে। এরপর স্টেশন রোড-চৈতন্যগলির মধ্যবর্তী বাইশ মহল্লা কবরস্থানে মায়ের পাশে শায়িত করা হবে তাকে।

এদিকে, আইয়ুব বাচ্চুর সেই নানা বাড়িকে ঘিরে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করেছে। সেখানে ভক্ত ও সাধারণ দর্শনার্থীরাও প্রবেশ নিষেধ করে দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন থেকে আগেই বলে দেয়া হয়েছে, চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী, জনপ্রিয় ব্যান্ড তারকা, সুরকার ও গীতিকার আইয়ুব বাচ্চুর লাশ পৌঁছালে কেউ যাতে সেখানে ভিড় না করে। দুপুর ২টা পর্যন্ত এখানে রাখার পর বিকেল তিনটায় নেয়া হবে নগরীর জমিয়তুল ফালাহ্ জাতীয় মসজিদ মাঠে। সেখানে তার কফিন সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত রাখা হাবে।

প্রয়াত এ কিংবদন্তী শিল্পীর মরদেহের দাফন-কাফন ও সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা নিবেদনের সকল ব্যবস্থার আয়োজন ও প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন শুধুমাত্র নিকটাত্মীয় ছাড়া আইয়ুব বাচ্চুর চট্টগ্রামের ভক্ত অনুরাগীদের তার লাশ দেখার জন্য শিল্পীর চট্টগ্রামের বাসভবনে (মাদারবাড়ী) ভিড় না করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছেন।

প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চু মারা যান। তার আকস্মিক মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক জগতসহ সারাদেশে শোকের ছায়া নেমে আসে।

তিনি ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, প্লেব্যাক শিল্পী। এলআরবি ব্যান্ড দলের লিড গিটারিস্ট তিনি। তিনি ১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

Add Comment