আয়েশা ও মনীষার সঙ্গে পরকীয়া নানা পাটেকরের

নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন সাবেক বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। অভিনেত্রীর এই অভিযোগ নিয়েই সরগরম বি-টাউন। তারই মাঝে নতুন করে উঠে আসছে নানার সঙ্গে ঘটে যাওয়া কিছু পুরনো ঘটনা।

জিনিউজ পত্রিকার খবরে বলা হয়, নব্বই এর দশকের কথা, তখন নীলাকান্তি পাটেকরের সঙ্গে বিবাহিত জীবন কাটাচ্ছেন নানা পাটেকর। ১৯৯৬ সালে ‘অগ্নিসাক্ষী’ ছবির শুটিংয়ের সময় অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার প্রেমে পড়েন নানা। সেসময় নানা পাটেকরের মতো কঠিন স্বভাবের একজন ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মনীষা কৈরালার প্রেমের খবরে বি-টাউনের অনেকেই অবাক হন। যদিও তখন মনীষাও তার বদমেজাজী স্বভাবের জন্য সেসময় চর্চিত ছিলেন।

তবে অগ্নিসাক্ষীর শুটিংয়ের সময় নানা ও মনীষা দুজনেই একে অপরের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছিলেন বলেই শোনা গিয়েছিল। সেসময় মনীষা কৈরালার প্রতিবেশীরা অনেকেই বলেছিলেন তারা নানাকে অনেক ভোরে মনীষার বাড়ি থেকে বের হতে দেখেছেন। এমনকি নানা সেসময় স্ত্রীর থেকে আলাদা থাকাও শুরু করেন। তবে মনীষার সঙ্গে সম্পর্কে থাকার কিছুদিনের মধ্যে তার উপর বিভিন্ন বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা শুরু করেন নানা। সেমসয় সহ অভিনেতাদের সঙ্গে মনীষাকে দেখলে বা খোলামেলা পোশাকে দেখলে নানা ভীষণ রেগে যেতেন এজন্য বিভিন্ন সময় মনীষার সঙ্গে ঝগড়াও হয়েছে বলে শোনা যায়।

এরই মাঝে একদিন অভিনেত্রী আয়েশা জুলকার সঙ্গে নানা পাটেকরকে তার ঘরে হাতে নাতে ধরেছিলেন মনীষা। শোনা যায় সেসময় আয়েশার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় ছিলেন নানা। এঘটনা মনীষার পক্ষে মানা সেসময় সম্ভব ছিল না। তিনি ভেঙে পড়েন। ক্ষুব্ধ মনীষা সেসময় আয়েশাকে গালিগালাজ করেন। এই ঘটনার পর মনীষা তাড়াতাড়ি নানাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। যদিও নানা সে প্রস্তাব সোজা খারিজ করে দেন। আর এরপরেই মনীষার সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যায় নানা পাটেকরের। এদিকে মনীষার সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার পর পরই নানা পাটেকর আয়েশার সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে স্বীকার করে নেন এবং আয়েশার সঙ্গে লিভ-ইন করা শুরু করেন।

Add Comment