টুথপেস্ট ব্যবহারে হতে পারে কোলন ক্যান্সার!

দাঁতের জীবাণু, ময়লা দূর করার জন্য দাঁত মাজার জন্য আরাম করে পছন্দের টুথপেস্ট ব্যবহার করেন। অথবা হাত পরিষ্কার করার জন্য সাবান। কিন্তু কখনো ভেবে দেখেছেন এটা আদতে আপনার কতটা উপকার করে। অথবা কতটা ক্ষতি। সাধারণ হাত ধোয়ার সাবান ও টুথপেস্টসহ বিভিন্ন ধরনের ভোগ্যপণ্যে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাকবিরোধী ট্রিকলোসান পাওয়া গেছে যা কোলন প্রদাহের কারণ। এমনকি এ কারণে কোলন ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। ইঁদুরের উপর গবেষণা করে সম্প্রতি এমন তথ্য উঠে এসেছে।

ট্রিকলোসানের স্বল্প মাত্রায় ব্যবহারও নিম্ন পর্যায়ের কোলন প্রদাহের কারণ হতে পারে। কোলাইটিস (মলাশয় প্রদাহ) এবং কোলাইটিসযুক্ত কোলন ক্যান্সার ইঁদুরের শরীরে দ্রুত বিস্তার করতে পারে।

তাছাড়া ট্রিকলোসান শরীরের নাড়ি সংক্রান্ত বিষয়ের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে।

উচ্চমাত্রায় ট্রিকলোসান গ্রহণ করা হলে শরীরের উপর বিষাক্ত প্রভাব ফেলতে পারে। তবে সর্বনিম্ন ঠিক কতটুকু মাত্রা পর্যন্ত ট্রিকলোসান গ্রহণ করা হলে শরীরে এর প্রভাব ফেলতে পারে সে বিষয়টি এখনো স্পষ্ট নয়।

নতুন গবেষণার অংশ হিসেবে, ইঁদুরকে তিন সপ্তাহ ধরে ট্রিকলোসান মিশ্রিত খাবার খেতে দেয়া হয়। ফলাফল বলছে, ট্রিকলোসান মিশ্রিত খাবার খেয়ে ইঁদুরের আচরণ ঠিক তেমনটাই হয় যেমন আচরণ একজন মানুষ এ সংক্রান্ত জটিলতায় ভুগলে করে থাকে। এক্ষেত্রে মানুষের শরীরে রক্ত প্রবাহ ও কোলন প্রদাহ ইঁদুরের ন্যায়।

প্রদাহজনক পেটের রোগের অনুরূপ ইঁদুরের শরীরে ট্রিকলোসান কোলন প্রদাহের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ট্রিকলোসান কোলন প্রদাহ বাড়িয়ে দিতে পারে যদিও এটি শরীরে স্বল্প মাত্রায় প্রয়োগ করা হয়।

গবেষণায় বলা হচ্ছে, ট্রিকলোসানের ব্যবহার টিউমারের আকার বড় করে দিতে পারে এবং এতে কোলন ক্যান্সারের মাধ্যমে স্তন্যপায়ী প্রাণীদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা হ্রাস করে দিতে পারে। এটি ইঁদুরের নাড়িগ্রন্থিতে অবস্থিত কমেন্সাল ব্যাকটেরিয়ার বৈচিত্র্যতা হ্রাস করে দেয়।

গবেষকরা বলছেন, তারা পরবর্তীতে মানবদেহের ভুঁড়ি বা নাড়িগ্রন্থির উপর ট্রিকলোসানের প্রভাব নিয়ে গবেষণা করবেন এবং তারা দেখতে চান ট্রিকলোসান প্রদাহজনক পেটের রোগ বা কোলন ক্যান্সারের কারণ কি না বা প্রভাব কতটুকু?

গবেষণার তথ্য মতে, পরবর্তী বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে এটা আমাদের জানা খুবই জরুরি যে, ট্রিকলোসান গ্রহণে আমাদের নাড়িভুঁড়ি সংক্রান্ত স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে কতটা প্রভাব ফেলে।

Add Comment