তাদের চেহারায় নেই প্লাস্টিক সার্জারির কারিশমা

মোহময়ী থাকতে প্লাস্টিক সার্জারির আশ্রয় নিয়েছেন একাধিক বলিউড নায়িকা। পিছিয়ে নেই ছোটপর্দার নায়িকারাও। প্রকাশ্যে সে কথা স্বীকারও করেছেন অনেকে। তবে, কৃত্রিম সৌন্দর্যের বদলে ন্যাচরাল লুককে প্রাধান্য দিয়েছেন এমন নায়িকার সংখ্যাও নেহাত কম নেই।

আনন্দবাজার পত্রিকা অবলম্বনে এক ঝলকে দেখে নিন প্লাস্টিক সার্জারিতে আপত্তি আছে এমন কয়েকজন নায়িকাকে। তারা সবসময় ন্যাচারাল লুককে প্রাধান্য দিয়ে এসেছেন।

শ্রদ্ধা কাপুর : বলিউডে পা দিয়েই লাখো দর্শকের মন জিতে নিয়েছেন শ্রদ্ধা। ফিটনেস ট্রেনিং ও সঠিক ডায়েটেই ফিট, চনমনে থাকতে পছন্দ করেন তিনি। ন্যাচরাল লুককেই প্রাধান্য দেন বেশি। শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, কসমেটিক সার্জারি থেকে তিনি থাকেন শত যোজন দূরে।

জেনেলিয়া ডি সুজা : বলিউডের পাশাপাশি একাধিক দক্ষিণী ছবিতেও অভিনয় করেছেন জেনেলিয়া। ঝলমলে হাসিই এই নায়িকার মূল স্টাইল স্টেটমেন্ট। ভালোবাসেন ছিমছাম থাকতে। প্লাস্টিক সার্জারির কথা নাকি কোনোদিন ভেবেও দেখেননি তিনি।

সোনম কাপুর : বি-টাউনে পা রাখার আগে সোনমের ওজন ছিল ৯০ কিলো। কোনো রকম সার্জারি ছাড়াই কেবল মাত্র শরীরচর্চা ও কঠোর ডায়েট মেনে মেদ ঝরিয়েছেন সোনম। এখনো ফিটনেস ট্রেনিং ও যোগ ব্যায়ামের উপরেই বেশি ভরসা রাখেন বলিউডের ‘ফ্যাশনিস্তা’।

সোনাক্ষী সিনহা : ডেবিউ ছবির আগে প্রায় ৩০ কিলো ওজন ঝরিয়েছিলেন ‘দাবাং গার্ল’। নায়িকা জানিয়েছেন, চেহারা নিয়ে তাকে অনেকবার ট্রোলড হতে হয়েছিল। তবে, নিজেকে ফিট ও ট্রেন্ডি রাখতে শরীরচর্চাতেই ভরসা রাখেন নায়িকা। কসমেটিক সার্জারি তার একেবারেই অপছন্দ।

আলিয়া ভাট : বলিউডে আত্মপ্রকাশের পর অনেক নায়িকাই গ্ল্যামার বাড়াতে প্লাস্টিক সার্জারির দ্বারস্থ হয়েছেন। তবে, আলিয়া নাকি কোনোদিনই কৃত্রিম সৌন্দর্যের কথা ভাবেননি। ন্যাচারাল লুকই বেশি পছন্দ তার। এর জন্য হেলদি ডায়েটে ভরসা রাখেন নায়িকা।

বিদ্যা বালান : চেহারা, লুক ও পোশাকের জন্য বহুবার ট্রোলড হয়েছেন বিদ্যা। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে নিয়ে রঙ্গ-রসিকতাও কিছু কম হয়নি। তবে, বিদ্যা বরাবরই বেপরোয়া। পছন্দ করেন ট্র্যাডিশনাল লুক। প্লাস্টিক সার্জারি তার ডিকশনারিতেই নেই।

পরিণীতি চোপড়া : নিয়মিত ফিটনেস ট্রেনিং ও হেলদি ডায়েটেই অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়েছেন পরিণীতি। লুকের থেকে অনেক বেশি অভিনয়কেই প্রাধান্য দেন নায়িকা। তাই প্লাস্টিক সার্জারি তার একেবারেই অপছন্দ।

Add Comment