দশ বছর এবং মাম্মা মিয়া!

নিজের বিয়েতে মায়ের পাশাপাশি বাবাকেও চেয়েছিল সোফি। কিন্তু প্রশ্ন ছিল, সোফির বাবা কে? উত্তর জানত না সোফি নিজেও। তাই বাবাকে খুঁজতে এক অভিনব পরিকল্পনা করে সে। গল্পটা পরিচিত লাগছে নিশ্চয়? ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া মাম্মা মিয়া! দেখেছেন যাঁরা, তাঁদের কাছে এই গল্পটা জানা। কিন্তু এরপর? ছবিতে বাবা-মাকে মিলিয়ে দেওয়ার পর সোফি স্কাইকে নিয়ে বেরিয়ে পড়ে। সেই সমাপ্তি থেকেই এবার আবার শুরু হতে যাচ্ছে মুভিটির দ্বিতীয় কিস্তি মাম্মা মিয়া: হিয়ার উই গো অ্যাগেইন। ছবির প্রথম কিস্তির সাফল্যের পর থেকেই পরবর্তী কিস্তি নিয়ে পরিকল্পনা শুরু হয়েছিল। ইউনিভার্সাল পিকচার্স ছবির ব্যাপক সাফল্যের কথা চিন্তা করে সিক্যুয়েল তৈরি করতে চাইলেও সেটার জন্য সময় লাগবে এমনটাই জানিয়েছিল। সেই দীর্ঘ সময় পার হয় ২০১৭ সালে। একই সঙ্গে প্রিক্যুয়েল ও সিক্যুয়েল এই চলচ্চিত্রটির নাম ঘোষণা করা হয় গত বছরের মে মাসে। অলিভার পার্কার দায়িত্ব পান নতুন চলচ্চিত্রের জন্য কাজ করার। পরিচালক হিসেবে তাঁকে পাওয়া যাবে ছবিতে। মিউজিক্যাল রোমান্টিক কমেডি ছবিতে এবারেও পাওয়া যাবে গতবারের সবাইকেই। থাকছেন লিলি জেমস, আমান্ডা সেইফ্রিড, ক্রিস্টিন বারান্সকি, জুলি ওয়াল্টার্স, কলিন ফার্থ, ডোমিনিক কুপার, মেরিল স্ট্রিপসহ আরও অনেকে।

সোফিকে চলচ্চিত্রে দেখতে পাওয়া যাবে স্কাইয়ের সন্তান গর্ভে ধারণ করতে। মায়ের ভিলার খোঁজখবরটাও সোফিই সামলায়। গ্রিক দ্বীপ কালোকাইরিতে বেশ চলে যাচ্ছিল সোফির জীবন। কিন্তু কিছু ব্যাপার এসে সোফি আর স্কাইয়ের দাম্পত্য জীবনে সমস্যা সৃষ্টি করে। নিজের মায়ের কথা বারবার মনে পড়ে এ সময় সোফির। বন্ধু তানিয়া আর রোজির সাহায্য নিয়ে মায়ের অতীত সম্পর্কে আরও জানার চেষ্টা করে সে। ১৯৭৯ সালে চলে যায় মুভির গল্প। একটু একটু করে মায়ের এই দ্বীপে আসা, ভিলা তৈরি করা, সোফিকে একা হাতে বড় করে তোলা, মায়ের জীবনে আসা তার বন্ধু স্যাম, বিল ও হ্যারি সম্পর্কে জানে সোফি। শুধু তাই নয়, মায়ের আত্মীয়দের সম্পর্কেও আরও বেশিকিছু জানতে পারে সে। মুভিতে সোফির মা ডোনার (মেরিল স্ট্রিপ) কম বয়সী চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে লিলি জেমসকে। পুরোনো চরিত্রগুলো ছবিতে থাকলেও তাই নতুন কিছু চরিত্র যোগ হয়েছে। ছবির আয় নিয়ে আশাবাদী নির্মাতারা। ধারণা করা হচ্ছে যে সব মিলিয়ে প্রথম সপ্তাহে ছবিটি ১০৫ মিলিয়ন ডলারের মতো আয় করতে সক্ষম হবে। তবে বাকি পুরোটাই ভাগ্যের হাতে। মাম্মা মিয়ার মতোই এই সিক্যুয়েলটি ভালো করে দেখাবে কি না সেটা জানতে হলে খুব বেশি অপেক্ষা করতে হবে না আপনাকে। আগামীকাল ২০ জুলাই মুক্তি পাবে ছবিটি।

১০ বছর! পুরো ১০ বছর পর মাম্মা মিয়ার পুরো দল আবার আসছে মানুষের মন মাতাতে। আরও অনেকের মতো আপনিও যদি এতদিন অপেক্ষা করে থাকেন, অবশেষে আপনার অপেক্ষার প্রহর শেষ হতে চলেছে। এবার তাহলে হলে গিয়ে মুভিটি দেখার প্রস্তুতি নিয়ে ফেলুন!

Add Comment