সর্ষের হলুদে তমালিকার একদিন

‘তখন ছিল সর্ষে-খেতে ফুলের আগুন লাগা, তখন আমি মালা গেঁথে পদ্মপাতায় ঢেকে, পথে বাহির হয়েছিলেম রুদ্ধ কুটির থেকে।’
১৩০৭ সালের জ্যৈষ্ঠে কুষ্টিয়ার শিলাইদহে গিয়ে সর্ষের সৌন্দর্য বর্ণনা করে উল্লিখিত শব্দগুলো লিখেছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। সর্ষে ফুলের প্রেমে পড়া কবির এই লাইনগুলো জায়গা করে নিয়েছিল ক্ষণিকা কাব্যগন্থের ‘বিলম্বিত’ শিরোনামের কবিতায়।
রবীন্দ্রনাথ সর্ষে খেতের হলুদাভাবকে আগুনের রঙের সঙ্গে তুলনা করেছেন, পথে বের হয়েছিলেন রুদ্ধ কুটির থেকে। কবিগুরুর মতো করেই রুদ্ধ শহর থেকে সর্ষের ফুলের রূপের টানে গ্রামে গিয়েছেন অভিনেত্রী তমালিকা কর্মকার। নয়নাভিরাম সর্ষে খেতে হৃদয়ের তৃষ্ণাহরা সৌন্দর্যে মাখামাখি করে একটি ছবি তুলে নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আপলোড করেছেন তিনি। স্নিগ্ধ সর্ষের সঙ্গে স্নিগ্ধ শীত সকালের যোগসূত্র টেনে সবাইকে জানিয়েছেন সকালের শুভেচ্ছা, লিখেছেন, ‘শুভ সকাল’।

Add Comment