সহকর্মীদের মাঝে বেশী প্রেম হয় শীতকালে

রিবুট ডিজিটাল নামের এক এজেন্সির জরিপ অনুযায়ী, শীতকাল হলো সে সময় যখন সহকর্মীদের মাঝে ভালোবাসার উত্তাপ ছড়ায় অন্য সময়ের চাইতে বেশী। এতে অবশ্য অবাক হবেন না অনেকেই। কারণ ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় মানুষ উষ্ণতা খুঁজবে এটাই স্বাভাবিক।

এই এজেন্সির জরিপ করা হয় ২,০১৭ জন মানুষের মাঝে। দেখা যায়, এর মাঝে ৪৫ শতাংশ মানুষই স্বীকার করেন তারা অতীতে কোনো না কোনো সময়ে একজন সহকর্মীর সাথে প্রেম করেছেন। আর ৬৬ শতাংশ জানান, সহকর্মীর সাথে তাদের প্রেমের সূচনা হয় শীতকালে।

জরিপ থেকে এটাও দেখা যায়, বেশিরভাগ ম্যানেজার সহকর্মীদের মাঝে সম্পর্ক থাকার বিরুদ্ধে। ২৬ শতাংশ বস জানান, সহকর্মীরা পেশাদার আচরণ বজায় রাখুক সেটাই তারা চান। কিন্তু ১২ শতাংশ কর্মী জানান তারা এক সময়ে তাদের বসের সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িত ছিলেন।

এই বছর জুনে এনগেজ পিইও কোম্পানিটির সিইও জে স্টার্কম্যান বিজনেস নিউ ডেইলিকে জানান, কর্মক্ষেত্রে সম্পর্কের ব্যাপারটাকে নিষিদ্ধ করতে গেলে বরং সহকর্মীদের মাঝে এই কাজটি লুকিয়ে করার প্রবণতা বাড়ে।

“কর্তৃপক্ষের উচিৎ এমন পরিষ্কার নিয়ম রাখা যেন কেউ সহকর্মীর সাথে সম্পর্কে জড়ালে সেটা এইচআরকে জানায় যাতে এ ব্যাপারটা সবার গোচরে থাকে এবং তাদের আচরণের ব্যাপারে সঠিক পরামর্শ দেওয়া যায়”, জানান তিনি।

রিবুট ডিজিটালের জরিপে দেখা যায়, সম্পর্কের বিরুদ্ধে অফিস পলিসি থাকার কারণে ৩৮ শতাংশ মানুষই সহকর্মীর সাথে সম্পর্ক গোপন রাখেন। এমনকি ২০ শতাংশ ক্ষেত্রে এসব সম্পর্কে জড়ান বিবাহিত মানুষেরা, অর্থাৎ পরকীয়া হতে দেখা যায়।

সম্পর্কের কারণে চাকরি ছেড়ে দিতে হয়েছে এমন ব্যাপার নিয়েও জরিপটি কাজ করে। অনেক সময়েই দেখা সহকর্মীর সাথে সম্পর্ক ভেঙ্গে গেছে, তখন আর সেই চাকরি করতে পারছেন না তিনি। এই কারণটিতে ৯ শতাংশ মানুষ চাকরি ছেড়ে দেয়। আর সহকারীর সাথে সম্পর্ক ফাঁস হয়ে যাওয়ায় চাকরি চলে যায় ৬ শতাংশের। এ থেকে দেখা যায়, সহকর্মীর সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে যাওয়া সহজ মনে হতে পারে কিন্তু সেই সম্পর্ক ভেঙ্গে গেলে আবার সমস্যায় পড়তে হতে পারে আপনাকেই।

Add Comment